1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. iliaych.arman@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন
Title :
লামায় ৪০ বছরের ভোগদখলীয় জায়গা জবরদখলের চেষ্টা, থানায় অভিযোগ প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ বান্দরবানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অসচ্ছল শিক্ষার্থীর মাঝে চেক বিতরণ চকরিয়ায় শেখ হাছিনার কারামুক্তি দিবস ও আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতিকে সংবর্ধনা নাইক্ষ্যংছড়িতে ২দিনে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার, আটক-৪ চকরিয়ায় দুঃস্থ নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ চকরিয়া বদরখালীতে দিন দুপুরে ব্যবসায়ীকে আহত করে টাকা ছিনতাই চকরিয়ায় নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থীর উপর হামলা ও ভাংচুর,সংবাদ সম্মেলনে স্হানীয় এমপির বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ফাইতং সমাজ সর্দারের ছেলের বিরুদ্ধে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগ লোহাগাড়া গৌড়স্থান নয়াপাড়া রাস্তার বেহাল দশা, দেখার যেন কেউ নেই!

মহেশখালী-বদরখালী চ্যানেল থেকে আ’লীগের নেতার নেতৃত্বে চলছে অবৈধ বালি উত্তোলন

নির্বাহী সম্পাদক কতৃক প্রকাশিত
  • Update Time : বুধবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৭৩ Time View
বিশেষ প্রতিনিধিঃ 
কক্সবাজারের চকরিয়ায় মহেশখালী-বদরখালী নৌ চ্যানেলের বিভিন্ন স্হান থেকে স্হানীয় প্রশাসনের নাকে ডগায় হরদম চলছে বালি উত্তোলন, যার ফলে নদী গর্ভে হারিয়ে যেতে বসেছে বেশ কয়েকটি গ্রাম। কোন নিয়মনীতি অনুসরণ না করে শুধু একক ব্যাক্তি ইচ্ছা মত বালি উত্তোলন করে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি  টাকা যার কানাকড়ি ও যাচ্ছে না সরকারি রাজস্ব খাতে।
জানাগেছে,  চকরিয়া উপজেলার বদরখালী পুলিশ ফাঁড়ীর উত্তর পাশে সড়কের পশ্চিম নতুনঘোনা এলাকায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অবৈধভাবে বালি মহাল তৈরি করে তা বছর জুড়ে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার রমরমা বানিজ্য চলছে অবাদে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্হানীয় সচেতন মহল জানান-উপজেলা বদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ভূট্টো সিকদার ও কালু ড্রাইভারের নেতৃত্বে বালিদস্যুরা সাগরের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে বালি উত্তোলন করে বিক্রি করে থাকলেও উপজেলা প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে।
আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী বালু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণে কোনোভাবেই সরব হতে পারছে উপজেলা মৎস্য বিভাগ ও উপজেলা নদী রক্ষা কমিটি ও পরিবেশ অধিদপ্তর। এসব সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে না পারায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে দিন দিন।
প্রতিদিন শত শত ঘনফুট বালি উত্তোলন করছে ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতাকর্মীরা। এ ভাবে বালি উত্তোলনের কারণে গ্রামীণ জনপথ, গুরুত্বপূর্ণ বেঁড়িবাঁধ, মহেশখালী-বদরখালী ব্রীজ,জনবসতীসহ হাজার কোটি টাকার সম্পদ মারাত্মক হুমকির মূখে পড়েছে।
এ ব্যাপারে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর, থানা, ফাঁড়ি পুলিশ ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজার (পাউবো) বিভাগকে স্ব-স্ব এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত জনগন বহুবার মৌখিক ভাবে জানানোর পরও বালি উত্তোলন এখনো বন্ধ হয়নি। অভিযোগ উঠেছে স্থানিয় গুটি কয়েক সংবাদকর্মীকে ম্যানেজ করায় এসব অবৈধ বালি মহলের বিরুদ্ধে তেমন সংবাদ প্রচার হয়নি বলে নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে। জানাযায়,প্রতি ঘনফুট বালি উত্তোলনের সময় সরকারি কোষাগারে একটি নির্দিষ্ট পরিমান রাজস্ব প্রদানের নিয়ম থাকলেও তাও মানা হচ্ছেনা এ ক্ষেত্রে। সরকার রাজস্ব বঞ্চিত হলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা- কর্মচারীরা অবৈধ বালি উত্তোলনকারীদের কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকোচ গ্রহণ করে ফ্রি স্টাইলে বালি উত্তোলনে সহায়তা করে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড এর স্লুইসগেট এর জায়গা দখল করে ও পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বালি উত্তোলন ও বালি মহাল বন্ধ করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপজেলা প্রশাসনকে তাগাদা দিয়েও প্রতিকার পাচ্ছেন না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Infobytesbd.com