1. iliycharman7951@gmail.com : admin :
  2. iliaych.arman@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৯:১৬ অপরাহ্ন
Title :
চকরিয়া এশিয়ান হাসপাতালের এমডির বিরুদ্ধে টাকা লুট,হয়রানী ও মারধরের অভিযোগ জানালেন ফার্মেসী মালিকের ভাই চকরিয়ার হতদরিদ্র জালাল বানবাসীর জন্য”শুকনো খাবার”বিতরণ করে দৃষ্টান্ত স্হাপন করলেন নদী ভাঙনে বিলীন হওয়ার পথে পশ্চিম বাটাখালী মাস্টার পাড়া গ্রাম চকরিয়ায় মার্কেট মালিকানা নিয়ে আপন বড় ভাইয়ের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ছোট ভাইয়ের চকরিয়ার অবহেলিত বানিয়ারকুম সড়ক সংস্কারকাজে হাত দিলেন সমাজসেবক মামুনুর রশিদ বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য”ফাতেমা পারুল”স্বামীর রোগ মুক্তির জন্য কোরআন খতম চকরিয়ায় অপহরণ মামলার আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণ ক্যান্সার আক্রান্ত মেধাবী ছাত্রী শিফা বাঁচতে চায় চকরিয়ায় কর্মহীনদের মাঝে মানবিক সহায়তা বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসক ফাইতং এ করোনা নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ, দুই বাড়িতে লকডাউন

কৈয়ারবিলের অবহেলিত পূর্ব বানিয়ারকুম গ্রামের চলাচলের রাস্তার বেহাল দশা, জনদূর্ভোগ চরমে

অতিথি প্রতিবেদক
  • Update Time : শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
  • ২৩০ Time View

মনসুর মহসিন, চকরিয়াঃ

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ০৭নং ওয়ার্ডের পূর্ব বানিয়ারকুম গ্রামের একমাত্র চলাচলের রাস্তার বেহাল দশা!

এই রাস্তাটি লক্ষ্যারচর ২নং ওয়ার্ডের হাজী পাড়া জামে মসজিদ থেকে সোজা উত্তর দিকে পূর্ব বানিয়ারকুম হয়ে ডলমপীরের মাজারের পাশে চৌধুরী বাজারে উঠে গেছে। হাজী পাড়া দিয়ে রাস্তার কিছু অংশ লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের বাকি অংশ কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড।

এই রাস্তাটি প্রয়াত কুদ্দুস মিয়া চেয়ারম্যান ও গিয়াস উদ্দিন মেম্বারের আমলে মাটি ভরাট হলেও বিগত ৩৫/৪০ বছরে উল্লেখযোগ্য কোন সংস্কার হয়নি। বর্ষাকালীন বন্যায় পলিমাটির প্রলেপ পড়ে মানুষের ভিটা ও চাষের জমি রাস্তা থেকে ১/২ ফুট উঁচু হয়ে যায়। তাই বৃষ্টি হলেই মানুষের ভিটা ও নাল জমির পানি রাস্তায় এসে জমে যায়। এই রাস্তা দিয়ে আর হাঁটা চলার কোন উপায় থাকে না।
পূর্ব বানিয়ারকুমের লোকজন মূলত কৃষি নির্ভর। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কৃষকের আনুমানিক ৫০ হেক্টর জমির ফসল প্রতিদিন কাঁধেবয়ে বাজারে নিয়ে যায়। এতে কৃষকের দুর্ভোগের শেষ নেই।স্কুলগামী কোমলপ্রাণ শিশুরা এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

বিষয়টি নজরে আনতে এলাকাবাসী স্থানীয়
সাংসদ জাফর আলম এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ ও জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।
স্থানীয় পথচারী সুলতান আহমদ বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে চেয়ারম্যান এলো গেলো কিন্তু কোন চেয়ারম্যান রাস্তায় এক কোদাল মাটিও দেয় নাই।এমনকি কেউ দেখতেও আসেনা। আজ আমাদের কষ্টের শেষ নাই।
স্থানীয় সমাজসেবক মিজানুর রহমান টুটুল বলেন, এক যুগ আগে ভরাট ছাড়াই শাহ জাহান চেয়ারম্যান ও পরে শরীফ উদ্দিন চৌধুরী এটি সংস্কার করলেও প্রতি বছর বন্যার পানির সাথে পলি মাটি এসে জমি ও ভিটে উঁচু হয়ে যাওয়ায় রাস্তার অবস্থা খারাপ হয়ে যায়। এই রাস্তাটি কমপক্ষে দুই ফুট উঁচু করলে রাস্তাটি কিছু দিন টেকসই হবে বলে।
এই রাস্তা দিয়ে ইয়াংছা-শান্তিবাজার সড়ক এবং ঢাকা-কক্সবাজার মহা সড়কের সাথে সহজে যোগাযোগ করা যায়।

দুই ইউনিয়নের কয়েক হাজার লোকজনের চলাচলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি সংস্কার করতে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Theme Customized BY Infobytesbd.com